Daily Sunshine

অফিসের ফার্নিচার বাড়িতে নেয়ার চেষ্টা, অতপর…

Share

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীর বাগমারা উপজেলা মেডিক্যাল টেকনিশিয়াল (ইপিআই) গোলাম মোস্তফা দফতরের ফার্নিচার নিজ বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালিয়ে অবশেষে ব্যর্থ হয়েছেন। স্থানীয় লোকজন ও দফতরের অন্য কর্মকর্তাদের বাধার মুখে তিনি ব্যর্থ হয়েছেন। তবে তিনি দাবি করেছেন, বাড়ির একটি অনুষ্ঠানের জন্য সেগুলো নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার সন্ধ্যার পর ইপিআই গোলাম মোস্তফা তার দফতরে এসে চেয়ার, টেবিলসহ প্রায় ৩০ হাজার টাকার ফার্নিচার একটি অটোভ্যানে ওঠান। সেগুলো নিজ বাড়ি পাশের উপজেলা দুর্গাপুরে নেওয়ার প্রস্ততি নিচ্ছিলেন। ফার্নিচারভর্তি ভ্যানটি সন্ধ্যা সাড়ে সাত টার দিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান ফটকের কাছে আসলে স্থানীয় লোকজনের সন্দেহ হয়। এসময় কমপ্লেক্সের কয়েকজন কর্মচারীও ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। তারা গোলাম মোস্তফার কাছে ফার্নিচার নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি অসংলগ্ন কথাবার্তা বলেন। এক পর্যায়ে লোকজন ভ্যানসহ ফার্নিচার আটকে দেন। তিনিও কৌশলে সটকে পড়েন। পরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকদের পরামর্শে সেগুলো ভ্যান থেকে নামিয়ে আবার দফতরে রেখে দেওয়া হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, সম্প্রতি বেশ কয়েকজন চিকিৎসককে (বিশেষ বিসিএস) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পদায়ন করা হলে চিকিৎসকদের কক্ষ সংকট দেখা দেয়। এজন্য ইপিআই টেকনিশিয়ালের নিয়ন্ত্রণে থাকা একাধিক কক্ষ ছেড়ে দেওয়ার জন্য বলা হয়। ওই কক্ষগুলোতে থাকা সরকারি টাকায় কেনা ফার্নিচারগুলো তিনি বাড়িতে নেওয়ার চেষ্টা করেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কয়েকজন কর্মচারী ও স্থানীয় বাসিন্দারা অভিযোগ করেন, গোলাম মোস্তফার বাড়ি পাশের দুর্গাপুর উপজেলায়। তিনি সন্ধ্যার দিকে অফিসে এসে ভ্যানে করে ফার্নিচারগুলো গোপনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। ফার্নিচারগুলোর দাম প্রায় ৩০ হাজার টাকা বলে জানিয়েছেন তারা। প্রায় ১০/১২দিন ধরে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার (ইউএইচএ) পদ শূন্য থাকার সুবাদে
তিনি ফার্নিচারগুলো বাড়িতে নেওয়ার চেষ্টা করেন বলে তারা অভিযোগ করেন।

এই বিষয়ে গোলাম মোস্তফার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে সন্ধ্যার পর অফিস কক্ষ থেকে ফার্নিচারগুলো বাড়িতে নেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ স্বীকার করে বলেন আগামি শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) তাঁর বাড়িতে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে, এজন্য ফার্নিচারগুলো নেওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। তবে বাধায় পারেননি। সেগুলো অনুষ্ঠান শেষে আবারো ফেরত দিতেন বলে জানিয়েছেন। ব্যক্তিগত অনুষ্ঠানে সরকারি ফার্নিচার ব্যবহার করা ঠিক কী না এবং এতোদূর থেকে কেন নিয়ে যাচ্ছিলেন এমন প্র্রশ্নের জবাবে তিনি কোনো উত্তর দেননি। এছাড়াও ফার্নিচার গুলো বাড়িতে নেওয়ার বিষয়ে কর্তৃপক্ষের অনুমতি নেননি বলে স্বীকার করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার পদটি শূন্য থাকায় তার সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি। তবে সিনিয়র চিকিৎসক রফিকুল ইসলাম বলেন, তিনি বিষয়টি জেনেছেন। খোঁজ-খবর নিয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে।

সানশাইন/১৩ জানু:/ রোজি

জানুয়ারি ১৩
১৯:১৫ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

সেলাই মেশিনেই চল্লিশ বছর

সেলাই মেশিনেই চল্লিশ বছর

রোজিনা সুলতানা রোজি : জীবন তো চলবেই জীবনের মতো ! তবে জীবনের মান চলমান রাখতে বিভিন্ন জন বেছে নিচ্ছেন বিচিত্র পেশা। কারন, জীবনের ভার বহন করতে জীবিকা প্রয়োজন সর্বাগ্রে। কেউ ছোটবেলা তো কেউ বড় হয়ে, সবাইকেই কোনো না কোনো পেশার সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করতেই হয়। যার যার সুবিধা মত তারা

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

স্টাফ রিপোর্টার : অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে আমরণ অনশনের মধ্যে রাজশাহী পাটকলের আটজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা হলেন, আব্দুল গফুর, জয়নাল আবেদিন, আলতাফুন বেগম, মহসীন কবীর, আসলাম আলী, মোশাররফ হোসেন, মোজাম্মেল হক ও

বিস্তারিত