Daily Sunshine

হতাশাগ্রস্ত ব্যক্তিকে সাহায্য করার পন্থা

Share

সানশাইন ডেস্ক : শুনতে হবে, বুঝতে হবে, বাড়াতে হবে ভালোবাসার হাত।

পরিবার-পরিজন কিংবা বন্ধুমহলে কেউ কি আছেন যে হতাশাগ্রস্ত ? থাকলে আপনি হয়ত তার দিকে সহযোগিতার হাত বাড়াতে চান। তবে ঠিক বুঝে উঠতে পারছেন না কীভাবে সাহায্য করা যায়।

আবার ভয়ে থাকেন, সাহায্য করতে গিয়ে যদি হিতে বিপরীত হয়! এর চেয়ে বরং সবকিছু স্বাভাবকি হয়ে যাওয়ার আশায় চুপচাপ থাকেন।

এ ব্যাপারে ‘ওহাইয়ো স্টেট ইউনিভার্সিটি ওয়েক্সনার মেডিকাল সেন্টার’র মনোবিজ্ঞানী কে. লুয়ান ফান বলেন, “মানসিক সমস্যা, হতাশা, আত্মহত্যা ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন নিয়ে কাজ করছি আমরা। বিভিন্ন সংস্থার এবিষয়ে নেওয়া পদক্ষেপগুলো আমাদের অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে।”

“একজন মনোবিজ্ঞানী হিসেবে আমি ছয়টি উপদেশ দিতে চাই, যা একজন হতাশাগ্রস্ত মানুষকে সাহায্য করতে আপনাকে সাহায্য করবে।”

সেগুলো হল- শোনা, প্রশ্ন করা, ভালোবাসা, পদক্ষেপ নেওয়া, যোগাযোগ, তার পক্ষে কথা বলা।

শোনা: একজন হতাশাগ্রস্ত ব্যক্তিকে সাহায্য করার আগে আপনাকে তার কথা শুনতে হবে, তার অবস্থা সম্পর্কে জানতে হবে। আপনি যত শুনতে চাইবেন, যে ততই আপনাকে তার মনে কথা জানাতে আগ্রহ পাবে। আর এভাবেই জানতে পারবেন তার হতাশার মাত্রা। মনে রাখবেন, আত্মহত্যার একটি অন্যতম বড় কারণ এই হতাশা।

প্রশ্ন করা: বিভিন্ন প্রশ্ন করে একজন হতাশাগ্রস্ত ব্যক্তিকে আলোচনায় আগ্রহী করে তুলতে পারবেন। আর হতাশাগ্রস্ত ব্যক্তিটিও বুঝতে পারবে যে আপনি তার প্রতি যত্নবান। আত্মহত্যার কথা ভাবছে কি না তা সরাসরি প্রশ্নে করতে পারেন। কারণ আপনার এই প্রশ্নই তাকে ধ্বংসাত্বক চিন্তা থেকে দূরে সরিয়ে আনতে সাহায্য করবে, তার জীবন বাঁচাবে।

ভালোবাসা: প্রশ্ন করা এবং কথা শোনার মাধ্যমে একজন ভুক্তভোগীর কাছে আপনার যত্নশীলতা প্রমাণীত হবে। আর তার কথা যদি যত্ন সহকারে শোনেন, সহমর্মীতা দেখান তাহলে তার প্রতি আপনার ভালোবাসা প্রকাশ করতে পারবেন। ভালোবাসার পাত্র হয়ে ওঠার অনুভূতিই হয়ত ওই হতাশাগ্রস্ত মানুষটিকে আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসার অনুপ্রেরণা যোগাবে।

পদক্ষেপ নিন: শুধু সুখ-দুঃখের কথা শুনলেই আপনার কাজ শেষ হয়ে যায় না। তাদের পরিকল্পনা সম্পর্কে জানার পর তাকে যেকোনো ভয়ঙ্কর সিদ্ধান্ত নেওয়া থেকে দূরে রাখার চেষ্টা করতে হবে। নিজেকে আঘাত করতে পারে বা আত্মহত্যার কাজে ব্যবহার করা যায় এমন যেকোনো বস্তু তার কাছ দূরে রাখতে হবে।

যোগাযোগ: আপনি নিজে হয়ত তাকে পুরোপুরি সাহায্য করতে পারবেন না। সেক্ষেত্রে যারা তাকে উপযুক্ত সহযোগিতা দিতে পারবে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে হবে। তার চিকিৎসার ব্যবস্থা নিতে হবে।

পক্ষে কথা বলা: মানসিক সমস্যার প্রতি সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি বদলানোর জন্য আপনাকেও পদক্ষেপ নিতে হবে, মাঠে নামতে হবে। আর এই কাজটা সবাই করতে পারেন।

সানশাইন/০৯ নভেম্বর/ রোজি

নভেম্বর ০৯
২০:১৮ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

নগর আ’লীগের সভাপতি হতে চাননি ফারুক চৌধুরী

নগর আ’লীগের সভাপতি হতে  চাননি ফারুক চৌধুরী

গুজব ছড়ানো হচ্ছে আসাদুজ্জামান নূর : আসন্ন ১ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন। ইতোমধ্যে স্থানীয় গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে, এবারের সম্মেলনে সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনসহ সভাপতি হতে চান রাজশাহী-১ (তানোর-গাদাগাড়ী) আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী। এসকল খবরের সত্যতা

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

অনশনে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রাজশাহী পাটকলের আট শ্রমিক

স্টাফ রিপোর্টার : অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে আমরণ অনশনের মধ্যে রাজশাহী পাটকলের আটজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরা হলেন, আব্দুল গফুর, জয়নাল আবেদিন, আলতাফুন বেগম, মহসীন কবীর, আসলাম আলী, মোশাররফ হোসেন, মোজাম্মেল হক ও

বিস্তারিত