Daily Sunshine

ছেলেকে মুক্ত করতে আদালতে শুনানী করলেন মা

Share

স্টাফ রিপোর্টার : ছেলেকে হাজত থেকে মুক্ত করতে বিচারকের সামনে দাড়িয়ে শুনানী করলেন হাজতী আসামীর ‘মা’। বুধবার দুপুর ১২টায় রাজশাহী চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ ঘটনাটি ঘটেছে। বিষয়টি আদালত চত্বরে সারা দিন আলোচিত হলেও বেলা শেষে আইনী জটিলতার কারণে মা তার সন্তানকে নিয়ে বাসায় ফিরতে পারেন নি।

ওই মায়ের নাম ফরিদা বেওয়া। তিনি রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার শেখের চক বিহারী বাগান এলাকার মৃত: আব্দুল কাদেরের স্ত্রী। তার ছেলে জামিনে মুক্তি পাওয়ার পরেও পিডব্লিউ জনিত জটিলতার কারনে হাজত থেকে মুক্তি পাচ্ছেন না।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত বর্জন করার ঘোষণা দেওয়ায় বুধবার এ আদালতে কোন আইনজীবী মামলা পরিচালনা করতে যাননি। এমনই এক সময় সকল বাঁধা উপেক্ষা করে হাজতী আসামীর মা ফরিদা বেওয়া একটি দরখাস্ত নিয়ে ফাইল হাতে চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারকের সামনে হাজির হন। এরপর তিনি তার ছেলে লিটন শেখের পিডব্লিউ জনিত জটিলতা প্রত্যাহারের জন্য আবেদন জানান। তার এ সাহসী উদ্যোগে অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকেন অন্যসব বিচার প্রার্থীরা।

ফরিদা বেওয়া বলেন, আমি সকাল বেলায় কোর্টে এসে জানতে পারি যে, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত বর্জন করা হয়েছে। সেখানে কোন আইনজীবী থাইকবে না। তাই আমার ছেলেকে মুক্ত করতে আমি নিজেই দরখাস্ত নিয়ে আদালতে বিচারকের সামনে দাঁড়িয়ে যাই। তিনি আমার কথা শুনলেও আইনজীবী না থাকায় আমার আবেদন না মঞ্জুর করেন।

সানশাইন/০২ অক্টোবর/ রোজি

অক্টোবর ০২
১৯:২৫ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

সাইকেলে স্কুলযাত্রায় ওরা

সাইকেলে স্কুলযাত্রায় ওরা

রোজিনা সুলতানা রোজি : এমন এক সময় ছিল যখন মেয়েদের সাইকেল চালানোকে সমাজ নেতিবাচক দিক হিসেবেই দেখতো। মেয়েদের অল্প বয়সে বিয়ে দেয়া হত যখন তারা বুঝতোই না যে বিয়ে কি? সাইকেল চালানো তো দূরের কথা মেয়েদের পড়ালেখারও তেমন সুযোগ দেয়া হত না। কিন্তু সমাজ আজ আধুনিকতার ছোঁয়ায় সচেতন হয়েছে। সমাজের

বিস্তারিত




এক নজরে

চাকরি

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সরকারি চাকরি আইনের সাতটি ধারা বাতিল চেয়ে উকিল নোটিস

সানশাইন ডেস্ক: সদ্য কার্যকর হওয়া সরকারি চাকরি আইনের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক সাতটি ধারা বাতিল বা প্রত্যাহার করতে স্পিকার ও ছয় সচিবকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ রোববার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিসটি পাঠিয়েছেন। স্পিকার, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রী

বিস্তারিত